প্রিয় বরিশাল - খবর এখন স্মার্ট ফোনে প্রিয় বরিশাল - খবর এখন স্মার্ট ফোনে আগামী বিশ্বকাপই হতে পারে চারজনের বিদায়ী মঞ্চ | প্রিয় বরিশাল আগামী বিশ্বকাপই হতে পারে চারজনের বিদায়ী মঞ্চ | প্রিয় বরিশাল
বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ০২:৫৯ অপরাহ্ন
প্রিয় বরিশাল :
খবর এখন স্মার্ট ফোনে...

আগামী বিশ্বকাপই হতে পারে চারজনের বিদায়ী মঞ্চ

রিপোর্টারের নাম
  • প্রকাশিতঃ শনিবার, ২২ মে, ২০২১

স্পোর্টস ডেস্ক॥ দুই বছর পর সাকিব, তামিম, রিয়াদ মুশফিকরা থাকবে না
দীর্ঘ এক যুগের বেশি সময় ধরে বাংলাদেশ দলের প্রতিনিধিত্ব করে আসছেন সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মুশফিকুর রহিম।

বাস্তবতা আমলে নিলে লাল-সবুজের জার্সিতে বেশিদিন আর মাঠের লড়াই করবেন না তারা। ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপই হতে পারে চারজনের বিদায়ী মঞ্চ। সম্প্রতি বাংলাদেশ দল খারাপ করলেও দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনায় চোখ টাইগার হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোর।

২ বছর পর সাকিব, তামিম, রিয়াদ, মুশফিকরা থাকবে না। এজন্য তরুণদের বেশি বেশি সুযোগ দিতে চান ডোমিঙ্গো। টানা দশ ম্যাচ জয় বঞ্চিত থাকলেও ভবিষ্যতের কথাও ভাবতে বললেন তিনি। তরুণদের দায়িত্ববান হওয়ার আর্জি বাংলাদেশ কোচের।

আজ (শনিবার) ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে রাসেল ডমিঙ্গো বলনে, ‘জয় সবসময়ই গুরুত্বপূর্ণ। তবে একইসাথে ভবিষ্যতের কথাও ভাবতে হবে। কখনও কখনও অতীত-বর্তমানের চেয়ে ভবিষ্যতে বেশি মনোযোগ দিতে হয়। জয় যেমন এখন গুরুত্বপূর্ণ, একইভাবে দলের উন্নতিও সমান গুরুত্বপূর্ণ।

২ বছর পর সাকিব, তামিম, রিয়াদ মুশফিকরা থাকবে না। আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে তখন যেন এখনকার তরুণ খেলোয়াড়রা দায়িত্ব নিতে পারে। আমাদের সতর্কতার সাথে এটা সামলাতে হবে।’

এদিকে কোচ হিসেবে বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব নেওয়ার পর সময়টা সুখকর যাচ্ছে না এই দক্ষিণ আফ্রিকানের। আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট হার দিয়ে বাংলাদেশ অধ্যায় শুরু করা এই কোচের ব্যর্থতার পাল্লাই ভারি। নিউজিল্যান্ডে দুই ফরম্যাটে ধবলধোলাই হওয়ার পর তার চাকরি নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়। এখনো সেই শঙ্কা কাটিয়ে উঠতে পারেননি ডমিঙ্গো।

 

ডমিঙ্গো জানালেন, ‘কোচ হিসেবে আপনার কাজ হলো নিজের কাজের ওপর আস্থা রাখা আর ঠিকভাবে নিজের কাজ করে যাওয়া। আমি আমার সামর্থ্যের সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করছি। যার সাথে যেখানেই খেলুন না কেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সবসময় চাপের। পরিবার, বন্ধুবান্ধব, মিডিয়া, ব্যক্তিগত চাপ সবসময়ই থাকে।’

সঙ্গে যোগ করেন ডমিঙ্গো, ‘কোচরা মাঠে গিয়ে খেলেন না, রান করতে পারেন না উইকেট নিতে পারেন না। কিন্তু একটু ভুল করলেও মানুষ কানাঘুষা শুরু করবে। তাই কোচ হিসেবে চাপ থাকবেই। আমার কাজ হল দলকে ঠিকমত প্রস্তুত করা, ছেলেদের সাহস জোগানো আর তাদের মনোবল দৃঢ় রাখা।’

এই ক্যাটাগরির আর নিউজ
© All rights reserved © priyobarishal.com-2018-2021
themesba-lates1749691102